ভাটিয়ারী শিপইয়ার্ড মার্কেটে কেনাকাটা

ভাটিয়ারী শিপইয়ার্ড
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ভাটিয়ারি শিপইয়ার্ড মার্কেটে কিভাবে যাবেন কেনাকাটার টিপস

আমার জন্ম চট্টগ্রামে। বিভিন্ন জায়গায় ঘোরাঘুরি করা এবং নতুন কিছু সম্পর্কে জানা ব্যাপক উৎসাহ। চট্টগ্রামের ভাটিয়ারীর শিপইয়ার্ড মার্কেট এর কথা বাংলাদেশের সবাই জানে।

জাহাজভাঙ্গা শিল্পের জন্য চট্টগ্রামের ভাটিয়ারী বিখ্যাত। এই সুপ্রিয়ার বাংলাদেশের অর্থনীতিতে ব্যাপক ভূমিকা রাখছে। বাংলাদেশের লোহার কোনো খনি নেই। তারপরেও লৌহ শিল্পে বাংলাদেশ স্বয়ংসম্পূর্ণ। নির্মাণকাজে যে পরিমাণ রড প্রয়োজন হয় তা বাংলাদেশে উৎপন্ন হয়।

যেসকল কোম্পানি রড উৎপন্ন করে তারা সাধারণত পুরাতন জাহাজ বিভিন্ন দেশ থেকে কিনে নেয়। তারপর সে গুলোকে ছোট ছোট আকারে কাটা হয়। জাহাজগুলোকে কাটার পর সেই লোহাকে গলিয়ে রড উৎপন্ন করা হয়।

একটা জাহাজে অনেক কিছুই থাকে। কোন কোন জাহাজে 2000 থেকে তিন হাজার লোক থাকার মতো করে গড়ে তোলা হয়।

একটা জাহাজ মানে একটা শহর। মানুষের প্রয়োজনীয় যত কিছু দরকার একটা জাহাজে থাকে। বরং তার চেয়ে বেশি কিছু থাকে।

যারা নিজেই জাহাজে একবার উঠে নাই তারা কল্পনাও করতে পারবে না একটা জাহাজে কি পরিমান আয়োজন থাকে।

যাহোক জাহাজের বিভিন্ন জিনিসপত্র বিক্রি করার মার্কেট আছে চট্টগ্রামে। আমি সেখানে প্রায়ই যাই। ইভেন সময় থাকলে ঘুরাঘুরির জন্য যাই। অনেক সময় খুবই কম দামে অনেক প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র পাওয়া যায়।

যাদের জিনিসপত্রগুলো বিখ্যাত সব কোম্পানি তৈরি করে থাকে। এইজন্য জাহাজের জিনিসপত্র অনেকদিন টেকসই হয়। জাহাজের তো পানিতে চলে। কাজের জিনিসপত্র সাধারণত ওয়াটারপ্রুফ হয়ে থাকে। এইজন্য যাদের জিনিসপত্র অনেক টেকসই হয়।

জাহাজের বিভিন্ন জিনিসপত্র নিয়ে আমার ইউটিউব চ্যানেলে বেশকিছু ভিডিও দেয়া আছে। সেগুলো চাইলে দেখে নিতে পারেন একটা আইডিয়া হবে।

অনেকে ভেবে থাকতে পারেন পুরাতন জিনিসপত্রের মাঝে ঘুরাঘুরি করা এটা কেমন শখ। তবে আমার কিছু পাগলা বন্ধু আছে। জর্দার আমার মতই জাহাজের জিনিসপত্র এর দোকানে ঘুরে বেড়ানো ভালো লাগে। তেমনই একজন ডাক্তার ইমরুল ভাই।

পেশাগত কাজে ডাক্তার ইমরুল ভাইয়ের ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম আসলে, প্রায়ই বায়না ধরেন ভাটিয়ারী শিপইয়ার্ড মার্কেটে যাওয়ার জন্য। আমিও নিরাশ করিনা। কারণ শিপইয়ার্ড মার্কেটে ঘুরে বেড়াতে আমারও ভালোলাগে।

তবে শিপইয়ার্ড মার্কেটের কোনো কিছুরই নির্দিষ্ট দাম নেই। আপনাকে জিনিস চিনতে হবে। এবং প্রত্যেকটা জিনিসের দাম সম্পর্কে ভাল আইডিয়া থাকতে হবে। আপনার যদি কোন প্রোডাক্ট এর দাম নিয়ে আইডিয়া না থাকে তাহলে আপনি ধরা খাবেন নিশ্চিত।

ওখানের দোকানদার গুলো আকাশছোঁয়া দাম চেয়ে থাকে। আপনাকে সেভাবেই কনফিডেন্টলি দামাদামি করতে হবে। আপনি যদি জিনিসের দাম না জেনে থাকেন তাহলে শেখ সকল জিনিস দামাদামি না করাই ভালো।

খারাপ লাগছিল একটা জিনিস বলতে আমি বাধ্য হচ্ছি। অনেকেই কম দামে বিভিন্ন জিনিসপত্র পাবার আশায় ভাটিয়ারী শিপইয়ার্ড মার্কেটে চলে যান। অনেক সময় দেখা যায় যে অনেক অকেজো জিনিসপত্র দোকানদারেরা ভাটিয়ারী শিব মার্কেটে বাইরে থেকে এনে রেখে দেয়।

এইজন্য ইলেকট্রনিক্স জিনিসপত্র কেনার ক্ষেত্রে খুবই সাবধান হতে হবে। কারণ এই সকল জিনিসপত্র এর কোন গ্যারান্টি নেই। আপনাকেই ভালোমতো দেখে শুনে নিয়ে আসতে হবে।

মূলত চারটি জায়গায় পুরাতন মার্কেট রয়েছে।

প্রথমটি হচ্ছে ভাটিয়ারীর একটু পাশেই। গুগল ম্যাপস লিঙ্ক 

দ্বিতীয়টি হচ্ছে চেয়ারম্যান ঘাটা। গুগল ম্যাপস লিঙ্ক 

মোবাইল নাম্বার 01827-337482

তৃতীয়তঃ সোনারগাঁ স্টেশনের পাশে। গুগল ম্যাপস লিঙ্ক 

চতুর্থত ভাঙার পুলের পাশে। গুগল ম্যাপস লিঙ্ক 

কি কি পাওয়া যাবে ভাটিয়ারী শিপিয়ার্ড মার্কেটে???

অনেকেই জিজ্ঞেস করে থাকেন ভাটিয়ারী শেয়ার মার্কেটে কি কি পাওয়া যায়???

আমি জবাবে বলি কি কি পাওয়া যায় না ভাটিয়ালি শিপইয়ার্ড মার্কেটে?

তবে কোনো আইটেমের নির্দিষ্টভাবে গ্যারান্টি দিয়ে বলতে যায়না। যখন কোন জাহাজ কাটা হয়, তখন এর ব্যবহার্য বিভিন্ন জিনিস নিলামে তোলা হয়। নিলামে তোলার পর সেগুলো ভাটিয়ারী শিপ ইয়ার্ড মার্কেটে চলে আসে। নির্দিষ্টভাবে কোন জিনিসের পাওয়ার গ্যারান্টি নেই। ওখানে দোকান গুলো সব সময় বেচাকেনার মধ্যে থাকে।

কেউ যদি কখনো ভাবেন আমি এই প্রোডাক্ট চুজ করে রেখেছি পরের বার এসে নিয়ে যাব। তাহলে সেটা আর পাওয়ার সম্ভাবনা নাই বললেই চলে। এ মনটা আমার সাথে অনেকবারই হয়েছে।

আমি কিভাবে কিনে থাকি??

ভাটিয়ারী শিপইয়ার্ড মার্কেটে কেনাকাটা একটি বুদ্ধি আপনাকে দিতে পারি। কোন প্রোডাক্ট পছন্দ হলে সেটার ছবি আমি তুলে নেই। এরপর সেখান থেকেই অনলাইনে সেই প্রোডাক্ট এর দাম যাচাই করে নেই। গুগলে ছবি আপলোড দিলে সে প্রোডাক্ট নতুন কত দামে পাওয়া যায় সেটার আইডিয়া পাওয়া যায়।

অ্যামাজন কিংবা আলীএক্সপ্রেস যে কোন প্রোডাক্ট এর দাম সহজে জানা যায়। অনলাইনে প্রোডাক্ট এর দাম দেখলেন তাহলে তাতে আপনার একটা আইডিয়া হয়ে যাবে। এরপর আপনি সেই অনুযায়ী দোকানদারের সাথে দামাদামি করতে পারেন। এই আইডিয়াটা কাজে লাগে আশা করি আপনি প্রোডাক্ট কেনার ক্ষেত্রে লাভবান হতে পারেন।

কেমন লাগলো আমার এই লেখা টি জানাবেন।

ফেসবুকে আমার প্রোফাইল এবং পেইজে কানেক্ট থাকতে পারেন।

আমার ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করে রাখতে পারেন। ভাটিয়ারীর বিভিন্ন প্রোডাক্ট নিয়ে আমি প্রায়ই ভিডিও দিয়ে থাকি।

শিপের কন্টেইনার দিয়ে কেউ বাড়ি বানাতে চাইলে এই লেখাটি পড়তে পারেন 


Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *